মৌলভীবাজার ও সিলেটে ১৩ দিনের সফরে আসছেন প্রধানমন্ত্রীর প্রটোকল অফিসার-২ আবু জাফর রাজু-

মোহাম্মদ হানিফ সিলেট ভ্যালী প্রতিনিধিঃ
  • Update Time : সোমবার, ২৭ জুলাই, ২০২০
  • ৩৮২ Time View

চা শ্রমিক ডটকমঃ-মৌলভীবাজার ও সিলেটে ১৩ দিনের সফরে আসছেন প্রধানমন্ত্রীর প্রটোকল অফিসার-২ আবু জাফর রাজু। ২৭ জুলাই সোমবার তিনি ঢাকা থেকে সড়ক পথে নিজ বাসভবন কুলাউড়ায় আসবেন। রোববার (২৬ জুলাই) সফরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তিনি।

পরিচালক প্রশাসন স্বাক্ষরিত এক পরিপত্র থেকে জানা যায়, সোমবার (২৭ জুলাই) সকালে ঢাকা থেকে সড়ক পথে মৌলভীবাজার হয়ে কুলাউড়ায় আসবেন তিনি। ওইদিন বিকেল ৫ টায় তাঁর পিতা একুশে পদক (মরণোত্তর) প্রাপ্ত সাবেক সংসদ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল জব্বার এর কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ, ফাতেহা পাঠ ও মোনাজাতে অংশ নিবেন। পরদিন মঙ্গলবার টিলাগাও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের আজীবন সভাপতি মরহুম আব্দুল হামিদ ও হাজীপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের আজীবন সাধারণ সম্পাদক মরহুম আমজদ উল্লাহ’র কবর জিয়ারত ও ফাতেহা পাঠ করবেন।

এরপর হাজীপুর ইউনিয়নে দুস্থদের মাঝে (ভিজিএফ কার্ডের চাল) ত্রাণ বিতরন করবেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে হাজীপুর বঙ্গবন্ধু পরিষদের পক্ষ থেকে ত্রাণ বিতরণে অংশ নেবেন। এবং একইদিন বিকালে শরীফপুর ইউনিয়নে দুস্থদের মাঝে (ভিজিএফ কার্ডের চাল) ত্রাণ বিতরন করবেন। পরদিন বুধবার কুলাউড়া পৌরসভা মহিলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে দুস্থদের মাঝে (ভিজিএফ কার্ডের চাল) ত্রাণ বিতরন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন তিনি। ওইদিন দুপুরে সমাজসেবা অধিদফতর কর্তৃক হিংগাজিয়া বাগানে চা-শ্রমিকদের জীবনমান উন্নয়নে এককালীন আর্থিক অনুদানের চেক প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন তিনি।

৩০ জুলাই বৃহস্পতিবার দুপুরে ৩৬০ আউলিয়ার অন্যতম হযরত শাহ কালা (র:) এর মাজার জিয়ারত, কুলাউড়া আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মরহুম আব্দুল লতিফ খান ও বরমচাল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি মরহুম আব্দুল কাদির এর কবর জিয়ারত ও ফাতেহা পাঠ করবেন। ওইদিন বিকালে ভাটেরা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাকালীন সভাপতি মোহাম্মদ আলী, সাবেক সভাপতি মরহুম আকমল আলী সিদ্দিকী, সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম আব্দুল আজিজ চৌধুরী ও আওয়ামী লীগ নেতা মরহুম আব্দুস সহিদ চৌধুরীর কবর জিয়ারত করবেন। সর্বশেষ বিকালে ভাটেরা ইউনিয়নে দুস্থদের মাঝে (ভিজিএফ কার্ডের চাল) ত্রাণ বিতরন করবেন।

৩১ জুলাই শুক্রবার ৩৬০ আউলিয়ার অন্যতম হযরত শাহ কামাল (র:) এর মাজার জিয়ারত করবেন। এরপর একুশে পদক (মরণোত্তর) প্রাপ্ত সাবেক সংসদ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল জব্বার এর বড় বোন মরহুমা আমিরুন নেছা এর কবর জিয়ারত, ফাতেহা পাঠ ও মোনাজাতে অংশ নিবেন। এরপর বিকালে কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম আব্দুল মালিক এবং পৌরসভার সাবেক ভারপ্রাপ্ত মেয়র মরহুম ছানোয়ার আলীর কবর জিয়ারত, ফাতেহা পাঠ ও মোনাজাতে অংশ নিবেন।

০২ আগস্ট রোববার নিজ বাড়িতে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং সর্বসাধারণের সাথে পবিত্র ঈদ উল আযহার কোশল বিনিময়। ৭ আগস্ট শুক্রবার হযরত শাহ জালাল (র:) এর মাজার জিয়ারত, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য, সিলেট সিট কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র মরহুম বদর উদ্দিন আহমদ কামরান এর কবর জিয়ারত, ফাতেহা পাঠ ও মোনাজাত এবং পরিবারের সাথে সাক্ষাৎ করবেন করবেন।
পরদিন ৮ আগস্ট সিলেট থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে যাত্রা করবেন।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

চা শ্রমিক ডটকমঃ গত ২ মার্চ সোমবার রাতেই নির্মমভাবে খুন করা হয় নিরীহ চা শ্রমিক বিশু মুন্ডাকে। ৩ মার্চ মঙ্গলবার বিশুর লাশ উদ্ধার করেন চুনারুঘাটের পুলিশ এবং বাগানের ২ মেম্বার ও পঞ্চায়েতের উপর তদন্ত করার অাদেশ দেওয়া হয় তদন্তে সফল নাহলে বুধবার রাতেই চুনারুঘাট পুলিশ বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে তদন্ত করতে থাকে বুধবার রাত ৮ টার সময় বিশু খাড়িয়া ও বুড়ু মুন্ডাকে পুলিশ জিঙ্গাসাবাদে জন্য চুনারুঘাট থানায় নিয়ে যায় এবং সেদিন রাতে অনিল ঝরা কালা কে ও রাত ১১ টায় অাটক করা হয়। ৫ মার্চ বৃহস্পতিবারে সকালে বিষ্ণু ঝরাকে ও থানায় নেওয়া হয়। তিনদিনের মধ্য নালুয়া চা বাগানের চা শ্রমিক খুনের ঘটনায় দু’জনের স্বীকারোক্তি জবানবন্দী দিয়েছে আসামী বিশু খাড়িয়া।

৬ মার্চ শুক্রবার হবিগঞ্জের আমলি আদালত ২ এর সিনিয়ার জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তৌহিদুল হাসান এর কাছে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দী দেয় সে।

স্বীকারোক্তিতে আসামী বিশু খাড়িয়া জানান, আসামি বিশু খাড়িয়ার মেয়ে গঙ্গামনি কে নালুয়া চা বাগানের পশ্চিমটিলায় বিয়ে দেন। আসামীর মেয়ের পরপর দুইটা বাচ্চা মারা যায়। বিশু খাড়িয়া কবিরাজের কাছে নিয়ে গেলে, কবিরাজ বলে নিহত বিষু মুন্ডা তার মেয়ের উপর টুটকা (যাদু) করায় মেয়ের বাচ্চা গুলো মারা যায়। এই কথা শুনে আসামীর মাথা গরম হয়ে যায়। সে তাকে মারার জন্য বিভিন্ন ভাবে ওত পেতে থাকে।

গত ০২-০৩-২০২০ ইং সোম বার পাশের গ্রামের মুলু সাওতালের বাড়ীতে তার ছেলের বিয়েতে যায় তারা । সেখানে আরো লোকজনের সাথে আসামি ও তার বায়রা ললির ছেলে কালা ঝরা, বিশু মুন্ডা ও ছিল। বিয়ে বাড়ীতে খাওয়া দাওয়া ও গান বাজনা শেষে বুড়ু মুন্ডার বাড়ীতে সবাই হারিয়া (মদ) খায়।

বিয়ে বাড়ীতে গান গাওয়া নিয়ে আসামি আর বিষু মুন্ডার মধ্য কথা কাটাকাটি হয়।পরে রাত ১১.০০ টার দিকে হারিয়া (মদ) খাওয়া শেষে আসামি বিশু খাড়িয়া ও কালা ঝরা নিহত বিশু কে নিয়া বট গাছের নিচে আসে। পরে পাশের খলা হতে বাশ আনিয়া প্রথমে কালা ঝরা নিহত বিষু মুন্ডার মাথায় দুটি আঘাত (বারি) করে। আসামি বিশু খাড়িয়া ও কালার হাত থেকে বাশ নিয়া নিহত বিশু মুন্ডার মাথায় একটি (বারি) আঘাত করে।

বিশু মুন্ডা মাটিতে পড়ে গেলে বিশুর গলার মাফলার দিয়া আসামি ও কালা তার গলায় পেচিয়ে ফাঁস লাগায়।

পরে আসামি বিশু খাড়িয়া ও কালা বিশু মুন্ডার লাশ তার গলার মাফলারে ধরিয়া টানিয়া পাশের দুমদুমিয়া বিলের পাড়ে ফেলে দেয়।

পরে তারা বাড়ীতে চলে যায়।
উল্লেখ্য গত ৩ মার্চ সকালে নালুয়া চা বাগানের পিকনিক স্পট দুমদুমিয়াতে বিশু মুন্ডার লাশ পাওয়া যায়। পরে সার্কেল এএসপি নাজিম উদ্দিন, চুনারুঘাট থানার ওসি শেখ নাজমুল হক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
পরে ওসি তদন্ত চম্পক দাম ও মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই শহিদুল ইসলাম তদন্ত করে তিন দিনের মধ্য ঘটনার সাথে জড়িত আসামীদের গ্রেফতার করে ঘটনা স্বীকারোক্তি নেন।

নালুয়ার চা শ্রমিকের হত্যাকারী গ্রেফতার স্বীকারোক্তি জবানবন্দী দিলেন অাসামীরা